শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ১০:৫৬ অপরাহ্ন

সরকারি জরুরি হটলাইন

সরকারি তথ্য ও সেবা-৩৩৩, জরুরি সেবা-৯৯৯, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে-১০৯, দুদক-১০৬, দুর্যোগের আগাম বার্তা-১০৯০, শিশুর সহায়তায় ফোন-১০৯৮, ভূমির সেবা পেতে...অভিযোগ জানাতে-১৬১২২, ই-জিপি জরুরি হেল্পলাইন-১৬৫৭৫, নৌপরিবহনের হেল্পলাইন-১৬১১৩। তথ্য সুত্র : পিআইডি

শিরোনাম
নৌযানের যাত্রীভাড়া ৩০ ভাগ সমন্বয় করে পুনর্নির্ধারণ শোক দিবসে নানা কর্মসূচী হাতে নিয়েছে কৃষিবিদ ড. আওলাদ বঙ্গবন্ধু বাংলার শান্তি, অগ্রগতি ও সাম্যের অবিসংবাদিত নেতা জয়পুরহাটে চিত্রাংকন, গ্রন্থপাঠ ও কুইজ প্রতিযোগিতাদের পুরস্কার বিতরণ করেন এসপি মাছুম পঞ্চগড় থেকে মানসম্মত শিক্ষা অর্জনের নয়া যাত্রা হবে- প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব বিএনপিসহ কিছু দল ও প্রতিষ্ঠান জ্বালানি তেলের মূল্য নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে- তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ‘স্মার্ট সোসাইটি’ প্রকল্প বিষয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে সচিবালয়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনী স্বেচ্ছা রক্তদানের চর্চা পারিবারিকভাবে ছড়িয়ে দিতে হবে- মোস্তাফা জব্বার জাতীয় শোক দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন বিষয়ক নির্দেশনা

সরকারি কাজে বাধা দান করায় ইউপি সদস্যের কারাদণ্ড

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি: জয়পুরহাটে আক্কেলপুর উপজেলায় সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অপরাধে ইউপি সদস্য মুক্তার হোসেনকে (৩৬) দুই মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে তাকে জেলা কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার রায়কালী বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম হাবিবুল হাসান।

সাজাপ্রাপ্ত মুক্তার হলো, উপজেলার রায়কালী খাঁ পাড়া গ্রামের মৃত হাফেজ উদ্দীনের ছেলে ও রায়কালী ইউনিয়ের চার নম্বর ওর্য়াডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবারে ইউএনও এস এম হাবিবুল হাসান রায়কালী বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছিলেন। বিকেল তিনটার দিকে ইউপি সদস্য মুক্তার তাতে বাধা দেন। তিনি সেখানের ইউএনওর সঙ্গে অসৌজন্যমুলক আচরণও করেন। ফলে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাকে দুই মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়। পরে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এরপর কারাগারে পাঠানো হয়।

অন্যদিকে স্থানীয়রা জানান, মুক্তার অনেক আগে থেকে উচ্ছৃঙ্খল প্রকৃতির ছিলেন। ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে উচ্ছৃঙ্খলার মাত্রা আরও বেড়ে যায়। মেম্বার মুক্তার বিবাহিত। সম্প্রতি তিনি রায়কালী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যান। ওই ছাত্রীর বাবা মুক্তারের বিরুদ্ধে থানায় একটি অপহরণ মামলা করেন। পুলিশ ওই ছাত্রীকে উদ্ধার ও মুক্তারকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠিয়েছিল। পরে আদালত থেকে জামিনও পেয়ে যায়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম হাবিবুল হাসান  বলেন, বৃহস্পতিবার রায়কালী ইউনিয়নের রায়কালী বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছিলাম। এসময় ইউপি সদস্য মুক্তার এসে সেই কাজে বাধা দেন এবং আমার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। তাই ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাকে দুই মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুর রহমান জানান, ভ্রাম্যমাণ আদালত ইউপি সদস্য মুক্তারকে দুই মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। তাকে বিকেলে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে মেম্বার মুক্তারের বিরুদ্ধে স্কুল ছাত্রী অপহরণের মামলা হয়েছিল।

ইন্দোবাংলা/এম. আর

সংবাদ শেয়ার করুন

সতর্কবার্তা

আমরা নিজস্ব সংবাদ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে (+880963871280, 01710629562) যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বে-আইনি।

 


করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ নির্দেশনা

© ইন্দোবাংলা২৪.কম সকল অধিকার সংরক্ষিত ২০২২।
কারিগরি সহায়তায়: অল আইটি