রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০২:৩৮ পূর্বাহ্ন

জেলা অফিসারের বক্তব্য নিতে বাধা পরিদর্শকের

মাহফুজুর রহমান রিভু, জয়পুরহাট
  • আপডেট টাইম: ৭ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১০২ বার পঠিত

জয়পুরহাট জেলা সমবায় অফিসার ইসমাইল হোসেন সিরাজীর তথ্য ও ভিডিও বক্তব্য ধারণের সময় বাধা প্রদান করেন পরিদর্শক ওয়াহেদুজ্জামান। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে জেলা সমবায় কার্যালয়ে সম্প্রতি প্রায় ৯ কোটি টাকা আত্নসাৎ করে একটি সমবায় সমিতির পরিচালক সবুজ সরদার উধাও হওয়ার তথ্য ও ভিডিও বক্তব্য সংগ্রহের সময় জেলা সমবায় অফিসারের রুমে এ ঘটনা ঘটে।

জয়পুরহাট শহরের মাষ্টারপাড়া এলাকায় অবস্থিত বিনিময় আদর্শ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিঃ যার রেজিঃ নং- ৪১৯, তাংঃ ২৮/০৮/২০১১, সংশোধনী রেজিঃ নং- ৬০৯ তাংঃ ১২/১১/২০১৪ এর পরিচালক সবুজ সরদার হঠাৎ করে সদস্য ও সাধারণ মানুষের কাছে এক লাখে এফডিআরের ২৬০০ টাকা লাভ দেওয়ার কথা বলে প্রায় ৯ কোটি টাকা প্রতারণামূলক আত্নসাৎ করে স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে গত ৩১ ডিসেম্বর ২০ তারিখ থেকে তার মোবাইল বন্ধ ও সে উধাও হয়ে যায়। এমন তথ্যে ভিত্তিতে জেলা সমবায় কার্যালয়ে প্রিন্ট ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা জেলা কর্মকর্তার ভিডিও বক্তব্য ধারণের সময় অফিস এলাকার বাসিন্দা, স্থানীয় প্রভাবশালী ও ওই অফিসের পরিদর্শক ওয়াহেদুজ্জামান জেলা সমবায় অফিসারের অফিস কক্ষে প্রবেশ করে অফিসারের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে বক্তব্য প্রদানে বাধা দেয়। এসময় সাংবাদিকরা উর্দ্ধতনের সাথে এমন আচরণে ও বক্তব্য প্রদানে বাধার ব্যাপারে জানতে চাইলে সে সাংবাদিকদের সাথেও অসৌজন্যমূলক আচরণ করে। পরে ওয়াহেদুজ্জামানকে জেলা কর্মকর্তা কক্ষ থেকে বের করে দিয়ে ক্যামেরার সামনে ভুল স্বীকার করে আনুষ্ঠানিক তথ্য ও বক্তব্য দেন।

স্থানীয় অন্যান্য এনজিও কর্মী ও এলাকাবাসীরা মনে করেন সমবায় অফিস কিছুতেই দায় এড়াতে পারেন না। তাদের মনিটরিং, অডিট কমিটি, সদস্য সব ঠিক আছে কিনা তা নিয়মিতভাবে দেখা হয় না। এ ঘটনায় সমবায় অফিসেরও যোগ সাজস থাকতে পারে।

জেলা সমবায় কার্যালয়ের জেলা কর্মকর্তাকে বক্তব্যে বাধা দেওয়া পরিদর্শক ওয়াহেদুজ্জামান সাংবাদিকদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে উত্তেজিত হয়ে বলেন, আমাদের দায়বদ্ধ নেই আপনাদের (সাংবাদিক) কাছে বলার। আমাদের দায়বদ্ধ আছে প্রধানমন্ত্রী, ১৬ কোটি মানুষের কাছে বলার।

সাংবাদিকদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের জন্য ভুল স্বীকার করে জেলা সমবায় অফিসার ইসমাইল হোসেন সিরাজী বলেন, ওই পরিদর্শক একটু রাগ চটা। তার জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী। আর বিনিময় আদর্শ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির পরিচালক সবুজ সরদারের ব্যাপারে উর্দ্ধতনকে জানিয়েছি এবং ৪৯ দিয়েছি। তদন্ত কমিটির তদন্ত চলছে, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন চন্দ্র রায় বলেন, শহরে অবস্থিত বিনিময় আদর্শ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি কর্তৃক আমানতকারীদের অর্থ নিয়ে উধাও হওয়ার ঘটনায় অবগত হয়েছি। তাদেরকে মামলা করার পরামর্শ দিয়েছি। পরিচালকের এনআইডি কার্ড জব্দ করা হয়েছে। তার পাসপোর্ট করা হয়েছে কিনা তা আমরা ক্ষতিয়ে দেখছি। সমবায় আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইন্দােবাংলা/এস.এম

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ