সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:১১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম:
কিশোরগঞ্জে নদী থেকে অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার কিশোরগঞ্জে অবৈধভাবে জমি দখল, যুবদল নেতা গ্রেফতার !   পেশা নয় নেশা  -আনোয়ার হোসেন ( এস আই) ♥ফোনে ফোনে প্রেম♥ আনোয়ার হোসেন (এস আই) শ্রমিক কল্যাণ তহবিল থেকে এ পর্যন্ত সাড়ে ৯ হাজার শ্রমিককে প্রায় ৪০ কোটি টাকা সহায়তা ডিমলায় বুড়িতিস্তা নদী ভাঙ্গন থেকে হামাক বাচাঁন পরিবেশবান্ধব উন্নত বাংলাদেশ গঠনে ইঞ্জিনিয়ারদের আরো অবদান রাখতে হবে- বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী ডিমলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নারীকে হত্যা বিএনপি নেতাদের বক্তব্যে মনে হয় বেগম জিয়া কারাগারে থাকলেই ভালো হতো- তথ্যমন্ত্রী অবশেষে স্হগিত হলো বোয়ালখালী কেন্দ্রিয় সমবায় সমিতির নির্বাচন

জাপানের রাষ্ট্রদূতের সাথে বাণিজ্যমন্ত্রীর বৈঠক

ইন্দোবাংলা রিপোর্ট
  • আপডেট টাইম: ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৬৭ বার পঠিত
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার ইকোনমিক জোনে জাপানের বিনিয়োগ হবে এশিয়ার মধ্যে বৃহৎ

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্শি বলেছেন, জাপানের সাথে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। জাপান বাংলাদেশের উন্নয়নের বড় অংশীদার। জাপানে বাংলাদেশের রপ্তানি বৃদ্ধির প্রচুর সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ এ সুযোগ কাজে লাগাতে চায়। তৈরিপোশাক রপ্তানির ক্ষেত্রে আরো বাণিজ্য সুবিধা প্রদান করলে জাপানে বাংলাদেশের রপ্তানি বাড়বে। আজ ঢাকায় অফিস কক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি (Ito Naoki) এর সাথে মতবিনিময়ের সময় এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় দেশে ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলা হচ্ছে। এগুলোতে জাপান বিনিয়োগ করলে লাভবান হবে। এখানে বিনিয়োগে বাংলাদেশ আকর্ষণীয় সুযোগ-সুবিধা প্রদানের প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। বাংলাদেশ জাপানের তৈরি গাড়ির বড় বাজার। বাংলাদেশে জাপান গাড়ি তৈরির কারখানা স্থাপন করলে তা লাভজনক হবে।

এ সময় জাপানের রাষ্ট্রদূত মন্ত্রীকে জানান, জাপান বাংলাদেশে অটোমোবাইল কারখানা স্থাপনের চিন্তা করছে। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার স্পেশাল ইকোনমিক জোনে জাপান বড় ধরনের বিনিয়োগ করবে, এ বিনিয়োগ হবে এশিয়ার মধ্যে বৃহৎ ।

বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেন, জাপান বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধি করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ২০২৪ সালে এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পরও জাপান বাংলাদেশকে দেওয়া বাণিজ্য সুবিধা অব্যাহত রাখার চিন্তা করছে। এজন্য এফটিএ অথবা পিটিএ করা যেতে পারে। জাপানের ব্যবসায়ীগণ বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য বৃদ্ধি করতে আগ্রহী। উভয় দেশের বাণিজ্য-বিনিয়োগ বৃদ্ধি করতে একটি জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করার পরামর্শ দেন তিনি। জাপানে দক্ষ শ্রমিকের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। বাংলাদেশ এ সুযোগ গ্রহণ করতে পারে বলেও তিনি বন্তব্য করেন।
এ সময় বাণিজ্যসচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দীন ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) মোঃ ওবায়দুল আজম উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ