শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন

বোয়ালখালীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

ইন্দোবাংলা ডেস্ক
  • আপডেট টাইম: শুক্রবার ২৩ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৯০ বার পঠিত

 

এম মনির চৌধুরী রানা

কালুরঘাট সেতুর পূর্বপাড় হতে মনসারটেক পর্যন্ত আরাকান সড়কের পাশের ৫ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে শত কোটির টাকার সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার করেন বোয়ালখালী উপজেলা প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) সকালে প্রচন্ড বৃষ্টি উপেক্ষা করে উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুন এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

 

অভিযান সূত্রে জানা যায়, গত ২ সপ্তাহ আগে থেকেই অবৈধ স্থাপনার মালিকদের গণবিজ্ঞপ্তিসহ মাইকিং করা হয়। বেশিরভাগ স্থাপনা সরিয়ে নিয়েছেন ব্যবহারকারীরা। অভিযানে প্রায় ৫ শতাধিক দোকান, কমিউনিটি সেন্টার, শিল্প প্রতিষ্ঠানের বর্ধিত অংশ উচ্ছেদ করা হয় মিলিটারি ব্রীজ থেকে কালুরঘাট সেতুর পূর্ব পাড় পর্যন্ত।

দিনব্যাপী চলা এই অভিযানে মিলিটারি ব্রীজ, শাকপুরা চৌমুহনী বাজার, গোমন্ডনী ফুলতল, পেতন শাহ আউলিয়ার মাজার গেট, কালুরঘাট বাজার সংলগ্ন প্রায় ৩ শতাধিক একর সড়ক ও জনপথ বিভাগের ভূমি উদ্ধার করা হয়। অভিযান দেখে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন যাত্রী সাধারন ও স্থানীয় জনগন। এ সড়ক যানজট মুক্ত হওয়ায় স্বস্তিতে চলাচল করতে পারবেন বলে জানান সড়ক ব্যবহারকারীরা।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, সড়ক ও জনপথ পটিয়া উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী উপ সহকারী প্রকৌশলী টোয়াইন চাকমা । আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় সহযোগিতা করেন এসআই নেছার এর নেতৃত্বে বোয়ালখালী থানার একটি টিম। এছাড়াও অবৈধ স্থাপনা সমূহের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বোয়ালখালীর সদস্যরা।

অভিযানের বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, সরকারি জমি দখল রোধ ও উদ্ধারে অভিযান চলবে, অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতিতে অবস্থান নিয়েছি। তাই কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুন বলেন, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও সরকারি জমি উদ্ধার এর তৎপরতা অব্যাহত থাকবে। দখলমুক্ত এ সকল স্থানে পুনরায় অবৈধ স্থাপনা কেউ গড়ে তুললে তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারন করেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ