মঙ্গলবার, ২৭ Jul ২০২১, ০৬:১৬ অপরাহ্ন

কিশোরগঞ্জে ডিগ্রী না নিয়ে ও শরিফুল নামকরা ডেন্টিস্ট

ইন্দোবাংলা ডেস্ক
  • আপডেট টাইম: রবিবার ৪ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮৬ বার পঠিত

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার রুপালী ও কর্মসংস্থান ব্যাংকের নীচতলায় রয়েছে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত সুসজ্জিত ‘কমফোর্ট ডেন্টাল কেয়ার’ ওই চেম্বারে আছে দামি ডেন্টাল ইউনিট। প্রবেশদ্বারে লেখা আছে বিনা অনুমতিতে প্রবেশ নিষেধ।

সেখানে সকাল ৯ টা হতে দুপুর ২ টা, বিকাল ৪ টা হতে রাত ৮ টা পর্যন্ত নিয়োমিত রোগী দেখেন অষ্টম শ্রেণী পাশ ডেন্টিস্ট মোঃ শরিফুল ইসলাম। তার চেম্বারে দামি আসবাবপত্র সবেই আছে। তবে নেই শুধু তার অনুমোদিত ডিগ্রী। পড়া লেখার দৌড় সর্ব্বোচ্চ অষ্টম শ্রেণী পাশ হলে ও তার নামের আগে ডেন্টিস্ট এবং নামের পরে ডেন্টাল ডিগ্রী হিসেবে ডিডিসি এসটি রেজি: নং- ২৬৬৭ কিশোরগঞ্জ, নীলফামারী লেখা। প্রতিবেদক ডিডিসি এসটি রেজি:নং তার অর্জিত এসব ডিগ্রীর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি দন্ত চিকিৎসা বিষয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত অভিজ্ঞ। খবর নিয়ে জানা যায় যে, প্রকৃতপক্ষে নামের শেষে লেখা কোনটিই তার ডিগ্রী নয়। কিন্তু এগুলো দেখে সাধারণ মানুষ তাকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বলে মনে করলে ও বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির (বিডিএস) সরবরাহ করা তালিকা অনুযায়ী তিনি একজন হাতুরে দন্ত চিকিৎসক।


নামধারী ডেন্টিস্ট মোঃ শরিফুল ইসলাম ভুয়া ডিগ্রী ব্যবহার করে সাধারণ মানুষের সাথে ১৫/১৬ বছর ধরে প্রত্যারণা করে আসছে। দাঁতের চিকিৎসার মতো সংবেদনশীল চিকিৎসায় এ ভুয়া দন্ত চিকিৎসক রোগিকে চিকিৎসা দেবার সময় যে সব যন্ত্রপাতি ব্যবহার করেন তা’ স্ট্যারিলাইজেশন বা জীবানুমুক্ত করণের ব্যবস্থা না নিয়েই চিকিৎসা করছেন। ফলে রোগীর জীবানু সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা তৈরী হচ্ছে। এর ফলে রোগীদের রক্তবাহিত বিভিন্ন রোগ সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়ে যায়। দন্ত রোগী শ্রমতি শ্যামলী রাণী ও মোঃ আলতানুর রহমান জানান, জীবানুমুক্তকরণ ছাড়াই অবাধে এক যন্ত্র একাধিক দাতের রোগীর মুখে ঢোকানো হচ্ছে। এতে অনেকেরই দাঁত ভাল না হয়ে দাঁতের মারাত্নক ক্ষতি হচ্ছে। অষ্টম শ্রেণী পাশ ডেন্টিস্ট মোঃ শরিফুল ইসলামের বিরুদ্ধে এখনই প্রশাসনের ব্যবস্থা নেয়া উচিত বলে ও মন্তব্য করে এই প্রতিবেদককে ডেন্টিস্ট শরিফুল কর্তৃক প্রদত্ত দাতের রোগের প্রিসক্রিপশন দেখান।


এ ব্যাপারে ঢাকা ডেন্টাল কলেজের অধ্যক্ষ হুমায়ুন কবীর বুলবুল জানান, বিডিএস পাশ নয়তো সে ডেন্টিস্ট নং। ডেন্টিস্ট হতে গেলে তাকে ব্যাচেলর অব ডেন্টাল সার্জারী (বিডিএস) পাশ করলেই তার পরিচয় হবে ডেন্টিস্ট বা দন্ত বিশেষজ্ঞ। যে কোর্সটি এমবিবিএস কোর্স-এর সমমান। ডেন্টিস্ট নামধারী দাতের চিকিৎসকের বাহারি সাইনবোর্ড ও অস্তিত্বহীন পদবী দিয়ে অভিনব প্রত্যারণার মাধ্যমে স্থানীয় লোকদের নিকট থেকে চিকিৎসার নামে হাতিয়ে নিচ্ছে কাড়িকাড়ি টাকা। এসব ভুঁইফোঁড় দাতের চিকিৎসক মোঃ শরিফুল ইসলামকে আইনের আওতায় আনা হোক।

বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ মোঃ নাজমুল হক সজিব জানান, স্বীকৃত প্রতিষ্ঠানের কোনো ডিগ্রী ছাড়া অষ্টম শ্রেণী পাশ শরিফুল দন্ত চিকিৎসক হয়ে থাকলে সে মানুষের সঙ্গে প্রত্যারণা করছেন। ডেন্টিস্ট পরিচয় নামধারী কথিত এই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে দ্রুত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানো জরুরী।

( বি:দ্র: অষ্টম শ্রেণী পাশ এই ভুয়া ডেন্টিস্টের মোবাঃ ০১৭১৮৪৪৫৬০৮, ০১৯১৯৪২০২১০)

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ