রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রাম ইন্টারন‍্যাশনাল হাসপাতালের একি হাল দেখার কি কেউ নেই

রউফুল আলম
  • আপডেট টাইম: সোমবার ১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৭০ বার পঠিত

 

এম মনির চৌধুরী রানা

স্বল্প ব‍্যায়ে মনমত চিকিৎসা সেবা পেয়ে এক সময় গরীব নিন্ম মধ‍্যবিত্তদের কাছে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল নগরীর চান্দগাঁও শমসের পাড়ায় গড়ে উঠা চট্টগ্রাম ইন্টারন‍্যাশনাল হাসপাতালটি।

কিন্ত সুষ্ঠু ব‍্যবস্হাপনার অভাব ও তদারকিতে ঘাটতি ও কিছু কিছু অযোগ্য ও অসাধু কর্মচারিদের কারনে হাসপাতালটির এ জনপ্রিয়তায় ধস নামতে শুরু করেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার হাসপাতালটি পরিদর্শনের সময় এমন কিছু কিছু অনিয়ম চোখে পড়েছে এ প্রতিবেদকের চোখে ও। নগরীর উত্তর মোহরা তাজ মাঝির বাড়ির নাশাত নামের ৩ বছরের এক শিশু কণ‍্যাকে বুকে নিয়ে দৌড়াদৌড়ি করছিল বেগমা নামের এক মা।

 

তিনি বলেন গত ২৫শে জানুয়ারি বিকেলে ঠাণ্ডা জনিত কারণে মেয়েকে নিয়ে আসছিলাম এখান তারা ভর্তি করাতে বল্লে ভর্তি করিয়ে দেই। আজকে যখন ডিসচার্জ করে তখন ৭ হাজার ৩ শত ২০ টাকার একটি বিল ধরিয়ে দেয়।

এত বিল দেখে তো আমার মাথায় বাড়ি।নিজে লেখা পড়া জানিনা উপস্হিত ২/১ জন গিয়ে প্রতিবাদ করলে হাসপাতালে দায়িত্বে থাকা লোকজন ভূল হয়েছে বলে তাড়াতাড়ি ঠিক করে দেয়। অপর হাসপাতালের ১০ ম তলায় জেনারেল ওর্য়াডে চেয়ারের উপর পা তুলে দিব‍্যি মোবাইল ঘাটাঘাটি করছিল এক তরুণ তার পাশের কয়েকটি খালি চেয়ারের একটিতে একটু বসে কিছু বলতে চাইছিল এক বয়স্ক ভদ্রলোকুলো।

তরুণটি নিজেকে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে চেচিয়ে চেচিয়ে বৃদ্ধ লোকটিকে বলেতে শুনা গেল এ গুলো ডাক্তারদের চেয়ার।পরে জানা গেল যিনি পা তুলে বসেছিলেন তার নাম সানাউল্লাহ,একজন পিয়ন।

নগরীর ফরিদার পাড়ার গুলশানারা নিয়ে গিয়েছিলেন জ্ঞান হারানো ভাগ্নিকে। দেখা গেল অজ্ঞান একজন রোগী পড়ে রইলেন সিটে তখন নার্সরা ব‍্যস্ত মোবাইল নিয়ে। রোগির অভিভাবকদের আকুতি কাকুতি এসব যেন তাদের কাছে নিত‍্য-নৈমত্তিক ব‍্যাপার।

এ নিয়ে প্রতিবেদক কথা বলতে চেয়েছিলেন কর্তৃপক্ষের সাথে কিন্ত কেউ এ নিয়ে মুখ খুলতে রাজি নয়। একজন আরেকজনের দিকে অংগুলি নির্দেশ করে দায় সারে।

ছবি-১) ভূয়া বিল পরে সংশোধিত

২) ডাক্তারের চেয়ারে পা তুলে বসে আছে পিয়ন।

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ