রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:০৩ পূর্বাহ্ন

কালুরঘাট-বেঙ্গুরা সড়ক সংস্কারের অভাবে ভোগান্তি!

রউফুল আলম
  • আপডেট টাইম: বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৭০ বার পঠিত

 

এম মনির চৌধুরী রানা

কালুরঘাট-গোমদণ্ডী-বেঙ্গুরা-সাকিরাপুল রেল লাইন সংলগ্ন সড়কের কালুরঘাট থেকে গোমদণ্ডী পর্যন্ত সংস্কার হলেই বোয়ালখালী উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থায় আসবে আমূল পরিবর্তন। দ্রুত সময়ে পৌঁছে যাওয়া যাবে নগরে। এতে চাপ কমবে উপজেলার প্রধান সড়কে।

সড়কটির বেঙ্গুরা থেকে গোমদণ্ডী তুলাতল পর্যন্ত কাপেটিং করা সড়ক থাকলেও মাত্র ৪ কিলোমিটার সড়ক সংস্কারের অভাবে সড়কটি কোনো কাজে আসছে না।

সড়কটি সংস্কারের লক্ষ্যে এলজিইডি’র অর্থায়নে এই সড়কে কালভার্ট ও সেতু নির্মাণ করা হয়েছিলো। তবে সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় কোনো কাজেই আসছে না কোটি টাকার সেতু। ভোগান্তিতে রয়েছেন এ অঞ্চলের মানুষ।

জানা গেছে, উপজেলার প্রধান সড়কের ওপর চাপ কমানোর জন্য রেলওয়ে লাইনের পাশে কালুরঘাট-গোমদণ্ডী-বেঙ্গুরা-সাকিরাপুল সড়কটি নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এ লক্ষ্যে গোমদণ্ডী-বেঙ্গুরা পর্যন্ত সড়কটি নির্মাণ করা হয়।

এ সড়কটি সাথে কানুনগোপাড়া হাওলা ডিসি সড়ক বুড়ি পুকুর পাড়ে এবং বেঙ্গুরায় দাশের দিঘী-শাকপুরা সড়কে যুক্ত রয়েছে। সাকিরাপুল থেকে কালুরঘাট পর্যন্ত সড়কটি নির্মাণের ফলে প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাথে পৌর সদরের সাথে যোগাযোগ সহজ হয়ে যায়। তবে সংস্কারের অভাবে সড়কটির চলাচল অনুপযোগী হয়ে রয়েছে গোমদণ্ডী তুলাতল থেকে কালুরঘাট অংশ।

গোমদন্ডী থেকে কালুরঘাট পর্যন্ত সড়কটি নির্মাণের লক্ষ্যে এ সড়কের পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড এলাকায় রেলওয়ের ১৩নং রেল ব্রীজের দক্ষিণ পাশে একটি ব্রীজ নির্মাণ করা হয়। বিগত ৮ বছর আগে এলজিইডি’র অর্থায়নে প্রায় ২ কোটি টাকা ব্যয়ে এ সেতুটি নির্মাণ করেন।

এ ছাড়া সড়কটি নির্মাণে একটি কালভার্ট ও মাটি ভরাট প্রায় সম্পন্ন করা হয়। কিন্তু রেলওয়ের ১২নং কালভার্টের পাশে একটি কালভার্ট নির্মাণ ও সড়কটি ঝোঁপঝাড় পরিস্কার করা হলে জনসাধারণের চলাচলের উপযোগী হয়ে যাবে এ সড়কটি। পূর্ণতা পাবে কালুরঘাট-গোমদন্ডী-বেঙ্গুরা-সাকিরাপুল সড়ক।

৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আরিফ উদ্দীন জুয়েল বলেন, এ সড়কটি চালু হলে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার-আরাকান সড়ক, কানুনপোপাড়া সড়ক, শাকপুরা-বেঙ্গুরা সড়কে যাতায়াতকারী যাত্রী সাধারণের কষ্ট লাঘব হবে। মূল সড়কের ওপর যানবাহনের চাপ অনেকটাই কমে যাবে। অল্প সময়ে নগরে যাতায়াত করা যাবে।

বোয়ালখালী পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান বলেন, এ সড়কটি সংস্কারের জন্য স্থানীয় সরকার বিভাগের উপজেলা প্রকৌশল অধিদপ্তর ৩ কোটি ২০ লাখ টাকার একটি প্রজেক্ট তৈরি করেছে। এই সড়ক সংস্কারের জন্য জাইকা থেকেও অর্থ বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। এছাড়া বোয়ালখালী পৌরসভা থেকেও একটি প্রজেক্ট স্থানীয় সরকার বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ