শনিবার, ৩১ Jul ২০২১, ০১:৫৭ অপরাহ্ন

পর্যটনে নারী উদ্যোক্তাদের সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা দরকার বলে দাবি করেন বক্তরা

প্রেসবক্স, বিটিইএ
  • আপডেট টাইম: শনিবার ২৯ মে, ২০২১
  • ১৬৪ বার পঠিত

‘ঐতিহ্যবাহী রান্না: সেরা ১০০ রেসিপি’ বইয়ের প্রকাশনা উৎসব ও বিটিআরআই কালিনারি এক্সিলেন্স এ্যাওয়ার্ড-২০২১’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার ২৮ মে-২০২১, শুক্রবার বিকাল ০৩টায় রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে-এ অবস্থিত ‘পর্যটন ভবনে’ আয়োজন করা হয়।

এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শামিমা নাসরিন হলেও রাষ্ট্রীয় প্রয়োজনে মুল অনুষ্ঠান শুরু আগেই চলে যান তারা ।

অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সপ্লোরারস এসোসিয়েশন (বিটিইএ)-এর চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সাগর, ইন্টারন্যাশনাল কালিনারি ইনস্টিটিউট (আইসিআই)-এর করপোরেট এক্সিকিউটিভ মাস্টার শেফ ড্যানিয়েল সি গোমেজ ও বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড-এর কুকিং এসেসর ও বিশিষ্ট রন্ধনশিল্পী তানিয়া শারমিন।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম রিসার্চ ইনস্টিটিউট-এর ফাউন্ডার প্রেসিডেন্ট ও মাই টিভি’র প্রযোজক (অনুষ্ঠান) কাজী রহিম শাহরিয়ার। আলোচনায় অংশ নেন ইন্টারন্যাশনাল কালিনারি ইনস্টিটিউট (আইসিআই)-এর পরিচালক (ট্রেনিং) জাহাঙ্গির আলম, বাংলাদেশ ট্যুরিজম রিসার্চ ইনস্টিটিউট-এর পরিচালক কাজী মোহিনী ইসলাম ও আফসিয়া আলম আনিকা, এবং ইংরেজী সাপ্তাহিক পত্রিকা দি গ্লোবাল নেট-এর সম্পাদক লায়ন মিঠু ধর চৌধুরী।

এতে সভাপতিত্ব করেন ঐতিহ্যবাহী রান্না : সেরা ১০০ রেসিপি’ বইয়ের সম্পাদক, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড-এর কুকিং এসেসর ও নাহার কুকিং ওয়ার্ল্ড-এর প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট রন্ধনশিল্পী হাসিনা আনছার নাহার। সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম রিসার্চ ইনস্টিটিউট-এর নির্বাহী পরিচালক আবু রায়হান সরকার ও কো-অর্ডিনেটর (পিআর এ্যান্ড ব্র্যান্ডিং) কে. এম. কাওসার আজিজ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ফারহানা আহমেদ।

উল্লেখ্য, এবারের অমর একুশে বইমেলা-২০২১ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সপ্লোরারস এসোসিয়েশন (বিটিইএ) ন্যাশনাল উইমেন্স স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড-এর কুকিং এসেসর ও বিশিষ্ট রন্ধনশিল্পী হাসিনা আনছার নাহার-এর সম্পাদনায় ‘ঐতিহ্যবাহী রান্না : সেরা ১০০ রেসিপি’ বইটি প্রকাশিত হয়েছে। এতে বাংলাদেশের ১০০ জনপ্রিয় রন্ধনশিল্পীর দেশ-বিদেশের সেরা ১০০টি জনপ্রিয় রেসিপি স্থান পেয়েছে। উপরোক্ত ১০০ জনপ্রিয় রন্ধনশিল্পী সহ পর্যটনশিল্প সংশ্লিষ্ট বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। সকলের উপস্থিতিতে বইটির মোড়ক উন্মোচন ও কেক কেটে প্রকাশনা উৎসব উদযাপন করা হয়।

বিটিইএ এর চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সাগর বলেন দেশের অনেক প্রথিতযশা রন্ধন শিল্পী এতোদিন জানতোনা যে তারা খাদ্য পর্যটন বা পর্যটন শিল্পের অংশ। পর্যটনে নারী উদ্যোক্তাদের সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন। হাসিনার সম্পাদনকৃত বইটি ১০০টি পরিবারকে একত্র করেছে যা নিঃস্বন্দেহে প্রশংসার রাখে।

অনেকে খাদ্য পর্যটনে প্রশংসনীয়ভাবে অবদান রাখলেও সরকারী স্বীকৃতি পাচ্ছেনা বলে মনে করেন বিটিআরআই এর সভাপতি কাজী রহিম শাহরিয়ার। তিনি আরো বলেন, আজকের এই আয়োজন খাদ্য পর্যটন ও রন্ধন শিল্পীদের বিকাশে অবদান রাখবে।
মাস্টার শেফ ড্যানিয়েল সি গোমেজ বলেন, বাংলাদেশের রন্ধন শিল্পীরা আন্তর্জাতিক মানের খাবার তৈরি করেন। সারা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশ পর্যটনে এগিয়ে যাবে। ভালো কাজের মূল্য একদিন অবশ্যই পাবেন।

বক্তারা বলেন, আগামী বই মেলায় ১০০০ জন রন্ধন শিল্পীর ১০০০ রেসিপি নিয়ে একটি বই প্রকাশ কববেন বিটিআরআই। পরিশেষে কেক কেটে এবং ১৫ জনরন্ধনশিল্পীকে ‘বিটিআরআই কালিনারি এক্সিলেন্স এ্যাওয়ার্ড-২০২১’ প্রদান করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি টানেন।

ইন্দোবাংলা/পি. এইচ

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ