বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৩৫ অপরাহ্ন

এবছরের বাজেট করোনা মহামারি মোকাবেলা করে দেশের উন্নয়নকে আরো গতিশীল করবে- মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম: বৃহস্পতিবার ৩ জুন, ২০২১
  • ৭৩ বার পঠিত
ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত ছবিঃ মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, এবছরের বাজেট করোনা মহামারি মোকাবিলা করে দেশের উন্নয়নকে আরো গতিশীল করবে। এই বাজেটের বাস্তবায়নের ফলে সরকারের সঠিক ও সময়োপযোগী অর্থনৈতিক পরিকল্পনায় মহামারি কাটিয়ে মানুষের জীবন যাত্রা সুস্থ-স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।

প্রতিমন্ত্রী আজ ঢাকায় হোটেল সোনারগাঁওয়ে ‘উপকূলীয় জনগোষ্ঠীর, বিশেষত নারীদের, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত লবনাক্ততা মোকাবিলায় অভিযোজন সক্ষমতাবৃদ্ধিকরণ’ প্রকল্পের আওতায় মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও ইউএনডিপির যৌথ আয়োজনে ‘জেন্ডার ক্লাইমেট নেক্সাস: টুওয়ার্ডস ইক্যুইটেবল এন্ড ইনক্লুসিভ ট্রান্সফরমেশন’ বিষয়ে প্রশিক্ষণের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বিশ্বের সর্বাধিক ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর একটি বাংলাদেশ। যার ফলে দেশে বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, নদী ভাঙ্গণ, ঘুর্ণিঝড় ও খরার মতো মারাত্মক প্রাকৃতিক দুর্যোগের হার বৃদ্ধি পেয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে উপকূলীয় এলাকার নারীরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। তবে নারীদের প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলার দক্ষতা ও অভিযোজনের সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে।

ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বিশ্বের সর্বাধিক ঝুঁকিপূর্ণ রাষ্ট্রগুলোর একটি বাংলাদেশ। অথচ জলবায়ু পরিবর্তনের কোন দায় বাংলাদেশের নেই। সরকার উপকূলীয় অঞ্চলের নারীদের জীবিকা ও কর্মসংস্থানকে গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করছে। অভিযোজন সক্ষমতাবৃদ্ধিকরণ প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলে উপকূলীয় অঞ্চলের নারীদের জলবায়ু সহিষ্ণু জীবিকায়ন হবে। বছর জুড়ে নিরাপদ ও সুপেয় পানি সরবারহ নিশ্চিত করা যাবে।

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রাম চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম ও ইউএনডিপি’র আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জী। তিন দিনব্যাপী প্রশিক্ষণে জেন্ডার ক্লাইমেট, ডিজাস্টার রিস্ক রিডাকশন, জেন্ডার রেস্পন্সিভ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি বিষয়ে ১২টি সেশন অনুষ্ঠিত হবে। প্রশিক্ষণে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, ইআরডি, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ও ইউএনডিপির কর্মকর্তাবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য, উপকূলীয় জনগোষ্ঠীর, বিশেষত নারীদের, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত লবনাক্ততা মোকাবিলায় অভিযোজন সক্ষমতাবৃদ্ধিকরণ প্রকল্পটি খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলার ৫টি জেলায় ৩৯টি ইউনিয়নে বাস্তবায়িত হচ্ছে। যার সুবিধাভোগীর সংখ্যা ৭ লাখ ১৯ হাজার ২২৯ জন।

ইন্দোবাংলা/আর. পি

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ