বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০২ পূর্বাহ্ন

অপসংস্কৃতিরোধে শহিদ শেখ কামালের আদর্শকে ছড়িয়ে দিতে হবে-কৃষিমন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম: বৃহস্পতিবার ৫ আগস্ট, ২০২১
  • ৫৬ বার পঠিত
ছবিঃ সংগৃহীত

কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, দেশে যুবসমাজের অবক্ষয় ও অপসংস্কৃতিরোধে শহিদ শেখ কামালের আদর্শ ও চেতনাকে তরুণদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। শেখ কামাল ছিলেন অনন্য ক্রীড়া সংগঠক, যিনি খেলাধুলায় নতুন যুগের সূচনা করেছিলেন। তিনি বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনে বিভিন্ন খেলাধুলায় অনন্য উচ্চতায় পৌঁছাতে পারতো।

মন্ত্রী আজ ধানমণ্ডির আবাহনী ক্লাব প্রাংগনে বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ পুত্র, ক্রীড়া সংগঠক, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও আবাহনীর প্রতিষ্ঠাতা শহিদ শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে গরিব ও অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী শেখ কামাল ছিলেন অত্যন্ত সৃজনশীল ও সংস্কৃতি অঙ্গনের উজ্জ্বল নক্ষত্র। সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘স্পন্দন’ গঠন করেছিলেন। একাধারে তিনি ছিলেন রাজনৈতিকভাবে সচেতন ও দেশপ্রেমিক। তিনি ৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান ও মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। তাঁর আদর্শ ও চেতনা ধারণের জন্য দেশের তরুণ যুবসমাজকে অনুপ্রাণিত করতে হবে। তাঁর আদর্শে তরুণদেরকে খেলাধুলায়, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করতে হবে এবং দেশপ্রেমে উজ্জীবিত করতে হবে। এটি করতে পারলে অবক্ষয় ও অপসংস্কৃতি রোধ করে দেশের তরুণসমাজকে আদর্শবান করে গড়ে তোলা যাবে।

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, দেশের কিছু তথাকথিত সেলিব্রেটিরা সমাজে অপসংস্কৃতি ছড়াচ্ছে। বিতর্কিত কর্মকাণ্ড দিয়ে তরুণ সমাজ ও জাতিকে তারা বিভ্রান্ত করছে। তাদের মুখোশ উন্মোচনে কঠোর অভিযান চলছে। অপসংস্কৃতিরোধে এ অভিযান চলমান থাকবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. রাজ্জাক আরো বলেন, ন্যায় ও সততার পথে থেকে দল করতে হবে। এটিই আওয়ামী লীগের ভিত্তি। যে দল একটি দেশ গঠন করেছে, সারা পৃথিবীর বুকে একটি নতুন জাতি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করেছে; যে দল প্রতিষ্ঠার পর থেকে সকল আন্দোলন সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছে- সেই দলে ভুঁইফোড় সংগঠনের কোন জায়গা নেই।

আবাহনী সমর্থকগোষ্ঠী কেন্দ্রীয় কার্যকরী সংসদ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এসময় আবাহনী সমর্থকগোষ্ঠীর সভাপতি মো: জিল্লুর রহমান, উপদেষ্ঠা কাজী আব্দুল হাকিম, বরকত-ই-খুদা, মির্জা ফজলুল হক, সৈয়দ বেলায়েত হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ইন্দোবাংলা/আর. কে

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ