শুক্রবার, ২৯ অক্টোবর ২০২১, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন

শার্শার হাঁড়িখালী ফসলি মাঠে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠেছে রুপালী ব্রিকস

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম: শুক্রবার ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৪৯৭ বার পঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি : শার্শার যদুনাথপুর হাঁড়িখালী মাঠে যশোর-সাতক্ষীরা মহা সড়কের পাশে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠেছে রুপালী ব্রিকস্ নামের ইট ভাটা। যার পাশেই রয়েছে ২ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১ টি মাধ্যামিক বিদ্যালয়, একাধিক মসজিদ ও মাদরাসা সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। রয়েছে এলাকার শত শত একর ফসলী জমি।

এই ইট ভাটা হওয়ায় এ সকল জমিতে বিগত বছর যে ফসল উৎপাদন হত বর্তমানে তার অর্ধেকে নেমে এসেছে। ফলে এ ইট ভাটা হওয়ায় এক দিকে যেমন শত শত একর জমিতে ফসল উৎপাদন কমে যাচ্ছে অন্য দিকে ভাটার কালো ধোয়ায় ও ধূলাবালিতে এলাকার পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা।

জানা গেছে, বিগত কয়েক বছর পূর্বে শার্শা উপজেলার উলাশী ইউনিয়নের যদুনাথপুর-পানবুড়ী গ্রামের হাঁড়িখালী মাঠে যশোর-সাতক্ষীরা সড়কের পাশে উপজেলার বুরুজবাগান গ্রামের জনৈক জাহাঙ্গীর আলম আইন অমান্য করে রুপালী ব্রিকস্ নামে একটি ইট ভাটা নির্মাণ করেছেন। এই ভাটার পাশেই রয়েছে যদুনাথপুুর প্রাথমিক বিদ্যালয়, পানবুড়ী প্রাথমিক বিদ্যালয়, সামটা আলিম মাদরাসা ও টেংরা মাধ্যামিক বিদ্যালয়।এছাড়াও রয়েছে একাধিক মসজিদ সহ শত শত একর ফসলী জমি।

সূত্রমতে ২০১৩ সালের ইটভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইন অনুযায়ী কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এক কিলোমিটারের মধ্যে ভাটা নির্মাণের কোন সুযোগ নেই। কিন্তু এই আইন অমান্য করে নির্মাণ হয়েছে এই ভাটাটি। পানবুড়ী গ্রামের কৃষক সাহেব আলী বলেন, ইটভাটার পাশেই আমার ধানী জমি রয়েছে। ভাটা হওয়ার আগে বিঘা প্রতি ১৮/২০ মণ ধান উৎপাদন হতো। এখন ১০/১১ মণ ধান হচ্ছে।

যা বিগত দিনের তুলনায় অর্ধেকে নেমে এসেছে। এ অবস্থায় শত শত একর ধানী জমির ফসল উৎপাদন অব্যাহত রাখতে হলে ইটভাটাটি বন্ধ হওয়া প্রয়োজন।

স্থানীয় ভাবে ভাটা নির্মাণে বাধা দিয়ে কোন ফল না হওয়ায় জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃ পক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে রুপালী ব্রিকস্ এর স্বত্তাধিকারী জাহাঙ্গীর আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, উপজেলা ইট ভাটা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদকের সাথে কথা বলুন। তিনি আমাদের সব দেখভাল করেন। এজন্য তাকে আমরা মাসিক চাঁদা দেই।

নিউজটি শেয়ার করুন


এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ