রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৩৪ অপরাহ্ন

সরকারি জরুরি হটলাইন

সরকারি তথ্য ও সেবা-৩৩৩, জরুরি সেবা-৯৯৯, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে-১০৯, দুদক-১০৬, দুর্যোগের আগাম বার্তা-১০৯০, শিশুর সহায়তায় ফোন-১০৯৮, ভূমির সেবা পেতে...অভিযোগ জানাতে-১৬১২২, ই-জিপি জরুরি হেল্পলাইন-১৬৫৭৫, নৌপরিবহনের হেল্পলাইন-১৬১১৩। তথ্য সুত্র : পিআইডি

শিরোনাম
মানুষ এখন শখ করে পান্তা ভাত খায় : খাদ্যমন্ত্রী ‘স্মার্ট বাংলাদেশের অংশীদার হই, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং ও মাদকমুক্ত রই’ জয়পুরহাটে সমবায়ীদের তোপের মুখে যুগ্মনিবন্ধক ডিএমপি কমিশনার হলেন অতিরিক্ত আইজিপি হাবিবুর রহমান উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য কমিউনিটি স্বাস্থ্যসেবায় বৈশ্বিক সহায়তা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী সার্বিক স্বাস্থ্য উন্নয়নে বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টার প্রশংসা ‘হু’ প্রধানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন কাউন্সিলর ডেরেক শোলের সাক্ষাৎ বিএনপিকে নির্বাচনে আসার আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর স্মার্ট বাংলাদেশ কেবল শেখ হাসিনার দ্বারাই সম্ভব : সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী অর্থ আত্নসাৎ, দুই বছর বেতন বাড়বে না সমাজসেবা কর্মকর্তার

৩ টি জোনে ভাগ হচ্ছে পর্যটননগরী কক্সবাজার

নিউজ ডেস্কঃ বৃহস্পতিবার ৪ জুনের মধ্যে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সংখ্যার উপর ভিত্তি করেই কক্সবাজার জেলাকে ৩টি জোনে ভাগ করা হচ্ছে। জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন গণমাধ্যকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি আরো জানান, গত পহেলা জুন থেকে জেলার ৮টি উপজেলায় এলাকা ভিত্তিক করোনা ভাইরাস সংক্রামণের সংখ্যা নির্ণয় করে কক্সবাজার জেলাকে ৩টি জোনে বিভক্ত করা হচ্ছে করোনা সংক্রমণের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। যেসব স্থানে সংক্রামণের আধিক্য রয়েছে সেসব এলাকাকে “রেড জোন” বা লাল চিহ্নিত এলাকা, যে ইউনিয়ন বা ওয়ার্ড মাঝারী পর্যায়ে সংক্রমিত হয়েছে বলে তথ্য পাওয়া যাবে সেগুলোকে ” ইয়েলো জোন” বা হলুদ চিহ্নিত এলাকা এবং যেসব স্থানে করোনা একেবারে সংক্রমিত হয়নি সেগুলোকে নিরাপদ রাখতে “গ্রীণ জোন” বা সবুজ চিহ্নিত এলাকা হিসাবে বিভক্ত করা হবে।

জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন বলেন, যেসব স্থানে ‘রেড জোন’ হিসাবে চিহ্নিত করা হবে, সে সব এলাকা থেকে কোন বর্হির গমন, আগমন করতে পারবেন না। এলাকাটি সম্পূর্ণ অবরুদ্ধ থাকবে। যে সকল স্থানে ‘ইয়েলো জোন’ চিহ্নিত করা হবে সেসব এলাকাতে সবকিছু সীমিত আকারে চলা ফেরা করতে শিথিলতা থাকবে। আর যেখানে ‘গ্রীণ জোন’ হিসাবে চিহ্নিত হবে সেখানে সরকারি স্বাস্থ্য বিধি মেনে, সামাজিক ও শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে অন্যান্য নির্দেশনা মতো প্রায় স্বাভাবিক জীবনযাত্রা থাকবে।

মোঃ কামাল হোসেন আরো বলেন, ৩জুনের মধ্যে জেলার সম্পূর্ণ তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ সম্পন্ন করা হবে এবং ৪জুন বৃহস্পতিবারের মধ্যে পুরো কক্সবাজার জেলাকে উল্লেখিত ৩টি পৃথক জোনে বিভক্ত করা হবে। তিনি বলেন প্রয়োজন হলে গণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। তিনি আরো বলেন আমরা কক্সবাজারে সম্প্রতি সময়ে এক ক্রান্তিকাল  অতিক্রম করতে যাচ্ছি। সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে সরকারের নির্দেশনা মেনে চলার আহবান জানাচ্ছি।

সংবাদ শেয়ার করুন

সতর্ক বার্তা

আমরা নিজস্ব সংবাদ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বে-আইনি। -ইন্দোবাংলা টীম।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ নির্দেশনা

© ইন্দোবাংলা২৪.কম সকল অধিকার সংরক্ষিত ২০২৩।
কারিগরি সহায়তায়: অল আইটি