সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৬:১৬ পূর্বাহ্ন

সরকারি জরুরি হটলাইন

সরকারি তথ্য ও সেবা-৩৩৩, জরুরি সেবা-৯৯৯, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে-১০৯, দুদক-১০৬, দুর্যোগের আগাম বার্তা-১০৯০, শিশুর সহায়তায় ফোন-১০৯৮, ভূমির সেবা পেতে...অভিযোগ জানাতে-১৬১২২, ই-জিপি জরুরি হেল্পলাইন-১৬৫৭৫, নৌপরিবহনের হেল্পলাইন-১৬১১৩। তথ্য সুত্র : পিআইডি

শিরোনাম
মানুষ এখন শখ করে পান্তা ভাত খায় : খাদ্যমন্ত্রী ‘স্মার্ট বাংলাদেশের অংশীদার হই, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং ও মাদকমুক্ত রই’ জয়পুরহাটে সমবায়ীদের তোপের মুখে যুগ্মনিবন্ধক ডিএমপি কমিশনার হলেন অতিরিক্ত আইজিপি হাবিবুর রহমান উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য কমিউনিটি স্বাস্থ্যসেবায় বৈশ্বিক সহায়তা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী সার্বিক স্বাস্থ্য উন্নয়নে বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টার প্রশংসা ‘হু’ প্রধানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন কাউন্সিলর ডেরেক শোলের সাক্ষাৎ বিএনপিকে নির্বাচনে আসার আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর স্মার্ট বাংলাদেশ কেবল শেখ হাসিনার দ্বারাই সম্ভব : সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী অর্থ আত্নসাৎ, দুই বছর বেতন বাড়বে না সমাজসেবা কর্মকর্তার

কক্সবাজারে প্রতিপক্ষের হামলায় এক কৃষক নিহত

আবুহুমাইর হোছেন বাপ্পি, কক্সবাজারঃ কক্সবাজার সদর উপজেলার পিএমখালী ইউনিয়নের চেরাংঘাটা এলাকায় মোর্শেদ আলী নামের এক কৃষককে পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৬ টার দিকে বাংলাবাজার চেরাংঘাটায় এঘটনা ঘটেছে। বাসার জন্য ইফতার সামগ্রী কিনতে বাজারে এসে হামলার শিকার হন। গুরুতর আহত মুর্শেদকে স্থানীয় বাসিন্দারা উদ্ধার করে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত মুর্শেদ সদরের পিএমখালী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড মাইজপাড়া গ্রামের ওমর আলীর ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন মধ্য প্রাচ্যে থাকলেও দেশে ফিরে চাষাবাদ করতেন।

পিএমখালীতে বোরো আবাদে সেচ প্রকল্প (স্কীম) নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জের ধরে হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনাস্থলের অদুরে বাংলাবাজার এলাকায় কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই ইকবালসহ একদল পুলিশ থাকলেও তাকে রক্ষায় এগিয়ে আসেনি বলে অভিযোগ।

নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৬ টার দিকে পিতাসহ বাড়ীর সদস্যদের জন্য ইফতার সামগ্রী কিনতে পাশ্ববর্তী চেরাংঘাটা বাজারে আসেন। সেখানে অর্তকিতভাবে প্রকাশ্যে দিবালোকে একই ইউনিয়নের মাইজ পাড়ার মাহমুদুল হক মেম্বার এবং তার সন্ত্রাসী ছেলেদের নেতৃত্বে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম আলাল, আব্দুল মালেক, তাহেরসহ বেশ ক’জন মিলে তাকে পিঠিয়ে গুরুতর আহত করেন।

পরে প্রত্যক্ষদর্শীরা এবং এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে মুর্শেদ মিয়া মারা যান।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) সেলিম উদ্দিন জানান, মুর্শেদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এঘটনাায় জড়িত যারাই হোক না কেন তাদের গ্রেফতার করা হবে।

সংবাদ শেয়ার করুন

সতর্ক বার্তা

আমরা নিজস্ব সংবাদ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বে-আইনি। -ইন্দোবাংলা টীম।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ নির্দেশনা

© ইন্দোবাংলা২৪.কম সকল অধিকার সংরক্ষিত ২০২৩।
কারিগরি সহায়তায়: অল আইটি