বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:০৭ অপরাহ্ন

সরকারি জরুরি হটলাইন

সরকারি তথ্য ও সেবা-৩৩৩, জরুরি সেবা-৯৯৯, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে-১০৯, দুদক-১০৬, দুর্যোগের আগাম বার্তা-১০৯০, শিশুর সহায়তায় ফোন-১০৯৮, ভূমির সেবা পেতে...অভিযোগ জানাতে-১৬১২২, ই-জিপি জরুরি হেল্পলাইন-১৬৫৭৫, নৌপরিবহনের হেল্পলাইন-১৬১১৩। তথ্য সুত্র : পিআইডি

শিরোনাম
মানুষ এখন শখ করে পান্তা ভাত খায় : খাদ্যমন্ত্রী ‘স্মার্ট বাংলাদেশের অংশীদার হই, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং ও মাদকমুক্ত রই’ জয়পুরহাটে সমবায়ীদের তোপের মুখে যুগ্মনিবন্ধক ডিএমপি কমিশনার হলেন অতিরিক্ত আইজিপি হাবিবুর রহমান উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য কমিউনিটি স্বাস্থ্যসেবায় বৈশ্বিক সহায়তা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী সার্বিক স্বাস্থ্য উন্নয়নে বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টার প্রশংসা ‘হু’ প্রধানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন কাউন্সিলর ডেরেক শোলের সাক্ষাৎ বিএনপিকে নির্বাচনে আসার আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর স্মার্ট বাংলাদেশ কেবল শেখ হাসিনার দ্বারাই সম্ভব : সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী অর্থ আত্নসাৎ, দুই বছর বেতন বাড়বে না সমাজসেবা কর্মকর্তার

বগুড়ায় ২ বছর পর ২টি হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন

স্টাফ রিপোর্টার : বগুড়ায় চাঞ্চল্যকর পৃথক দুই হত্যা মামলায় ৩ আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। ইতোমধ্যে জবানবন্দীর জন্য তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) বেলা ১২টায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) বগুড়া কার্যালয়ে সাংবাদিকদের পিবিআই বগুড়ার পুলিশ সুপার (এসপি) মো. আকরামুল হক জানান, দীর্ঘ দুই বছর পর বগুড়া সোনাতলায় টাকা লেনদেনের জেরে বন্ধুর হাতে খুনের মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন মারুফুল ইসলাম ওরফে পাপ্পু (২৮)। তিনি সোনতলা উপজেলার ঠাকুরপাড়া গ্রামের মৃত নজিবুরের ছেলে।

অন্যদিকে নন্দীগ্রামের আলোচিত উজ্জ্বল হত্যা মামলার দুই আসামাী আলী হাসান (২৮) ও সাইদুল ইসলাম সাহাদকে (৪০) গ্রেফতার করা হয়। তারা উভয়ই নন্দীগ্রামের শেখের মরিয়া এলাকার মৃত মুসা হাজী ও ফজলুর রহমানের ছেলে।

গত ২০২০ সালের ১১ এপ্রিল সোনাতলায় টাকা লেনদেনের জেরে বন্ধুর ছুরিকাঘাতে খুন হন ব্যবসায়ী পারভেজ ইসলাম সুমন। ওই দিন আসামী পাপ্পুর ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত অবস্থায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর আড়াইটার দিকে মারা যায় তিনি।

মূলত নিহন সুমনের সোনাতলা বাজারে মোবাইল সিমের ব্যবসা ছিল এবং তার সাথে মাসুদ রানা নামের এক ব্যক্তি বিক্রয়কর্মী হিসেবে কাজ করতেন। ফলে সিম বিক্রির টাকা নিয়ে মাসুদের সাথে সুমনের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। এই বিরোধের মীমাংসের জন্য ২০২০ সালের ১১ এপ্রিল দুপুর ১টার দিকে সুমনকে তার বাড়ী থেকে সোনাতলার করমজা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডেকে নেয় পাপ্পু। কিন্তু পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী বার্মিজ চাকুর আঘাতে সুমনকে হ‌ত্যা করা হয়।

অন্যদিকে, গেল দুই বছর আগে নন্দীগ্রামের শেখের মরিয়া এলাকায় পিটিয়ে হত্যা করা হয় উজ্জ্বল হোসেন (৩৮) নামের এক যুবককে। পরে নিহতের মা জহুরা বেওয়া স্থানীয় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে বাদী নারাজী জানালে আদালতের নির্দেশে মামলার তদন্ত শুরু করে পিবিআই।

জানা যায়, নিহত উজ্জ্বলকে গরু চোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই। গ্রেফতার দুজনই বুধবার (১১ মে) বগুড়া চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছেন।

সংবাদ শেয়ার করুন

সতর্ক বার্তা

আমরা নিজস্ব সংবাদ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বে-আইনি। -ইন্দোবাংলা টীম।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ নির্দেশনা

© ইন্দোবাংলা২৪.কম সকল অধিকার সংরক্ষিত ২০২৩।
কারিগরি সহায়তায়: অল আইটি